হাসপাতালের পরিত্যক্ত জায়গা এখন বাহারি ফুলবাগান

লেখক: আতাউর রহমান
প্রকাশ: ৬ মাস আগে

Spread the love

কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভবনের প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশ করার সময় চোখে পড়বে বাহারি ফুলবাগান। এতে দেখা যাবে ফুটে আছে বিভিন্ন জাতের গাঁদা ফুল, হাসনাহেনা, গোলাপ ফুল, সালভিয়া, এলোভেরা, বেলি, পাতাবাহার ও বাগানবিলাস সহ নানা ধরনের ফুল। ফলে হাসপাতালের পরিবেশ হয়ে উঠেছে মনোহর। পরিত্যক্ত জায়গায় ফুলবাগান করে প্রশংসিত হচ্ছেন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, অসুস্থ রোগীরাও এসব ফুলের সৌন্দর্যে অভিভূত হচ্ছে। ফুলবাগান দেখতে আসছে ফুল প্রেমীরাও। নানা রকম ফুলে এ যেনো এক স্বর্গরাজ্য । এ ছাড়াও হাসপাতালের অন্যান্য পতিত জমি ও আঙিনায় করা হয়েছে নানা ধরনের শীতকালীন সবজির আবাদ। এতে পুরো হাসপাতাল হয়ে উঠেছে সবুজে সবুজময়। জানা গেছে, কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়ার আপামর জনগোষ্ঠীর চিকিৎসা সেবার একমাত্র ভরসাস্থল ৫০ শয্যাবিশিষ্ট এই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। প্রতিদিনই নানা অসুখবিসুখ নিয়ে চিকিৎসা সেবা নিতে আসেন প্রায় দুই থেকে তিনশো রোগী। বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার দায়িত্বে রয়েছেন ডা. আবু হাসনাত মোঃ মহিউদ্দিন মুবিন। তিনি এ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যোগদানের পর থেকেই পাল্টে যেতে শুরু করে হাসপাতালের অবকাঠামো উন্নয়নসহ হাসপাতালের বাহ্যিক চিত্র। এ প্রসঙ্গে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আবু হাসনাত মোঃ মহিউদ্দিন মুবিন বলেন, হাসপাতালে নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে রোগীরা আসেন চিকিৎসা সেবা নিতে। এই হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের সেবার মান বাড়াতে আমি যোগদানের পর থেকে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করে আসছি। আমি খেয়াল করে দেখেছি রোগীরা হাসপাতালের পরিত্যক্ত জায়গায় ময়লা আবর্জনা ফেলছে। এতে এসব ময়লা আবর্জনা হাসপাতালের পরিবেশকে দূষিত করে তুলছে। তাই আমি কমপ্লেক্সের পরিত্যক্ত জায়গায় ও ভবনের আঙিনায় সবজি আবাদ ও ফুলের বাগান করেছি। এতে করে হাসপাতালের পরিবেশ হয়ে উঠেছে সবুজ শ্যামল ও নানা রকম ফুলের সৌন্দর্যে সৌন্দর্যময়। এতে করে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ও চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের মধ্যে ইতিবাচক প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। আমি মনে করি প্রকৃতিই মানুষের পরম বন্ধু ।

  • ব্রাহ্মণপাড়া