কুমিল্লার দেবিদ্বারে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ ১০ গ্রামের বাসিন্দারা পান করছে সুপেয় পানি

লেখক:
প্রকাশ: ১ বছর আগে

Spread the love

স্টাফ রিপোর্টারঃ
কুমিল্লার দেবিদ্বারে গভীর নলকূপ, আর্সেনিকমুক্ত টিউবওয়েল, সাবমার্সিবল মটরসহ নানা উপায়ে সুপেয় পানির ব্যবস্থা করার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন সৌদি প্রবাসী আবু কাউছার ভূঁইয়া। পৌরসভা এলাকার কমপক্ষে ১০টি গ্রাম এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সুপেয় পানি ও জলের ব্যবস্থা করে রীতিমতো প্রশংসা কুড়িয়েছে ওই প্রবাসী। আবু কাউছারের এমন মহতি উদ্যোগে এলাকার ২০ হাজারেও বেশি মানুষ বিশুদ্ধ পানি পানের সুযোগ পেয়েছেন। একজন প্রবাসীর এমন উদ্যোগে অনুপ্রেরণা যোগাচ্ছে অন্য সকল প্রবাসীদেরকেও। এদিকে শুধু পানি ও জলের ব্যবস্থা করেই মানব সেবা সীমাবদ্ধ রাখছেন না ওই প্রবাসী। এখন বাড়ি বাড়ি স্যানিটেশন ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হতদরিদ্র পরিবার গুলোর জন্য স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট এবং বিভিন্ন মসজিদ মাদ্রাসায় অজুখানা নির্মাণসহ অসহায়দের জন্য গৃহনির্মাণ কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। সৌদি প্রবাসী আবু কাউছার এখন দেশে এবং প্রবাসে দৃষ্টান্ত। অপরদিকে ওই প্রবাসীর মানবিক কার্যক্রম গুলো এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ভাইরাল হচ্ছে।
জানা যায়, কুমিল্লার দেবিদ্বার পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের ভিংলাবাড়ী গ্রামের অদুদ ভূঁইয়ার ছেলে আবু কাউছার ভূঁইয়া। শৈসব এবং কৈশরে দারিদ্রতার সাথে সংগ্রাম করেছেন স্বপ্নবাজ এ যুবক। পরিবার ও দেশের অর্থনীতির চাকা সচল এবং নিজের ভাগ্যোন্নয়নের জন্য প্রায় ২০ বছর আগে সৌদি আরবে পারি জমান। সেখানে কঠিন শ্রমের বিনিময়ে অর্থনৈতিক ভাবে স্বাবলম্বী হন ওই প্রবাসী। এর আগে তিনি স্বপ্ন দেখতেন নিজে প্রতিষ্ঠিত হতে পারলেই সমাজের অবহেলিত জনগোষ্ঠীর কল্যানে কাজ করবেন। স্বপ্নের সিঁড়ি বেয়ে তিনি এখন স্বাবলম্বী। তাই পরিকল্পনা অনুযায়ী চলছে মানব সেবার কাজ। তিনি যে গ্রামের বাসিন্দা সেই গ্রামসহ আশপাশের বেশ কয়েকটি গ্রামের ভূগর্ভস্থ পানিতে আর্সেনিকের ব্যাপক উপস্থিতি রয়েছে। এসব এলাকায় গভীর নলকূপ এবং সাবমার্সিবল পাম্প ছাড়া সুপেয় পানির ব্যবস্থা করা যায় না। তাই শুরুতেই তিনি এলাকার হতদরিদ্র মানুষের জন্য সুপেয় পানির ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে কয়েকশ টিউবওয়েল স্থাপন করে দেন। প্রায় ১০টি গ্রামে তিনি ২০ হাজার বাসিন্দার সুপেয় পানির ব্যবস্থা করেন। পার্শ্ববর্তী মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জ বদিউল আলম উচ্চ বিদ্যালয়ে দুই হাজার শিক্ষার্থীর নিরাপদ পানি পানের ব্যবস্থা করে দেন। তাছাড়া এলাকার অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং মসজিদ মাদ্রাসায় সুপেয় পানির পাশাপাশি টয়লেট অজুখানা নির্মাণ করে দেয়া হয়। এদিকে প্রবাসী কাউছার সুপেয় পানির ব্যবস্থা নিশ্চিত করার পর এখন এলাকায় হতদরিদ্র পরিবার গুলোর স্যানিটেশন ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। অনেক অসহায় পরিবারকে গৃহ নির্মাণ, কন্যাদায় গ্রস্থ পরিবারের মেয়েদের বিবাহে সহায়তা, দুঃস্থ অসহায়দের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরন, দরিদ্র পরিবারের সন্তানদের শিক্ষা কার্যক্রমে সহায়তা, কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ এবং করোনাকালে নানাভাবে সহায়তার হাত প্রসারিত করে তিনি এখন এলাকার প্রিয় মুখ। প্রচার বিমুখ প্রবাসী কাউছার এখন শুধু প্রবাসীদের কাছে নয় এলাকাবাসীর জন্যও দৃষ্টান্ত।
ভিংলাবাড়ী গ্রামের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী এবং কোম্পানীগঞ্জ বাজার বনিক সমিতির যুগ্ম আহবায়ক মহিউদ্দিন মহি ভূঁইয়া বলেন, প্রবাসী কাউছার আমাদের এলাকার জন্য দৃষ্টান্ত। তিনি গরীবের বন্ধু হিসেবে পরিচিত। তিনি ১০ গ্রামের ২০ হাজার সুবিধা বঞ্চিত মানুষের সুপেয় পানি, স্যানিটেশনসহ নানা ধরনের সুবিধা নিশ্চিত করেছেন। তার এ ধরনের মানব সেবা এবং কল্যানমুলক কাজ অব্যাহত রয়েছে।
এ বিষয়ে প্রবাসী কাউছার ভূঁইয়া বলেন, আমি আমার স্বপ্ন পূরনে কাজ করে যাচ্ছি। কোন স্বার্থের জন্য নয়, শুধু মানব সেবাই আমার মুল উদ্দেশ্য।

  • দেবিদ্বার