দেবিদ্বারে ছাত্রলীগের আয়োজনে ৭মার্চ দিবস উদযাপন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

লেখক:
প্রকাশ: ১ বছর আগে

Spread the love

নিজস্ব প্রতিবেদক।।
কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগের আয়োজনে ঐতিহাসিক ৭মার্চ উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার বিকাল ৪ টার সময় দেবিদ্বার মসজিদ মার্কেট মাঠে দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক আসাদুর রহমান রনির সভাপতিত্বে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় বক্তব্য রাখেন, দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, দেবিদ্বার পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আবুল কাশেম চেয়ারম্যান, কুমিল্লা উঃ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম রুবেল, দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক আসাদুর রহমান রনি,যুগ্ম আহবায়ক মোঃ আল-আমিন,ইমরান হোসেন ইমু সহ দেবিদ্বার উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বৃন্দ। সভায় বক্তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, জাতীয় চার নেতা ও মহান মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহিদকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে বাঙালি জাতির ২৩ বছরের বঞ্চনার ইতিহাস এবং ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের গুরুত্ব ও তাৎপর্য তুলে ধরে আলোচনা করেন। দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক আসাদুর রহমান রনি বলেন, ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ ডাক এলো মুক্তি সংগ্রামের। বাঙালি জাতির অবিসংবাদিত নেতা, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালের এই দিনে ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে দাঁড়িয়ে স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। সেদিন তিনি বজ্রকণ্ঠে রচনা করেছিলেন ১৮ মিনিটের এক মহাকাব্য। পুরো বাঙালি জাতি সেদিন মন্ত্রমুগ্ধের মতো অবগাহন করেছিল রাজনীতির মহাকবি বঙ্গবন্ধুর অমর কবিতা। বলেছিলেন, ‘এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম/এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম‘।এ ভাষনের মধ্য দিয়েই বাংলার স্বাধীনতা কামী জনগনের মাঝে চেতনা সৃষ্টি হয়েছিল । প্রধান অতিথির বক্তব্যে দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন, ৭ই মার্চ এমন একটি ভাষন ছিলো, যে ভাষনের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জন হয়েছে৷ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ১১ মিনিটের যে ভাষনটি দিয়েছিল সেই ভাষনটি এখন সারাবিশ্বে শ্রেষ্ঠ ভাষন বলে স্বীকৃত। আমরা যখন জাতির জনকের আদর্শ কে ধারন করতে পারবো, তখনই এই ভাষনের সার্থকতা আসবে।

  • দেবিদ্বার